পাবনায় স্ত্রী ও দুই সন্তান মিলে স্বামীকে হত্যার অভিযোগ

পাবনা প্রতিনিধি: পাবনা সদর উপজেলার গয়েশপুর ইউনিয়নের শালাইপুর কাচারীপাড়া গ্রামে মুকুল মালিথা (৫৫) নামে স্বামীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্ত্রীর বিরুদ্ধে। শুক্রবার (১ মে) ভোরে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে স্ত্রী, ছেলে ও মেয়ে মিলেই পরিকল্পিতভাবে মুকুল মালিথাকে হত্যার পর আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার পায়তারা করছে বলে স্থানীয় মানুষদের অভিযোগ।

এলাকাবাসী জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে মকুল মালিথাকে (৫৫) তার স্ত্রী নাসিমা বেগম (৪৫), ছেলে মেহেদী হাসান (১৬) ও মেয়ে নিশি খাতুন (২৫) মিলে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

নিহতের স্ত্রী নাসিমা বেগমের দাবি, তিনি ঘুমিয়ে ছিলেন। হঠাৎ ঘুম ভেঙ্গে দেখের ঘরের ডাবের সাথে তার স্বামীর গলায় ফাঁস দেয়া মরদেহ ঝুলছে। তিনি তাৎক্ষণিক মরদেহ নামিয়ে নীচে রাখেন। পরে পাশের ঘরে থাকা ছেলে মেয়েরা আমার চিৎকার শুনে ছুটে আসেন।

নিহতের ভাই বাবলু মালিথা, খলিল মালিথা, আফজাল মালিথার দাবি, মা, ছেলে ও মেয়ে মিলে পরিকল্পিত ভাবে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে দাবি করছে।

গয়েশপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন মুতাই জানান, স্থানীয়দের কাছ থেকে জেনেছি পারিবারিক কলহের কারণেই এ হত্যার ঘটনা ঘটেছে।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসিম আহম্মেদ জানান, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহই এ হত্যার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে তিনজনকে আটক করেছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর হত্যা না আত্মহত্যা সেটি নিশ্চিত হওয়া যাবে। এ ঘটনায় থানায় মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Next Post

করোনা আতঙ্কে পেরুতে কারাগারে দাঙ্গা, নিহত ৯

শুক্র মে ১ , ২০২০
আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পেরুর রাজধানী লিমার একটি কারাগারে দাঙ্গায় কমপক্ষে নয় বন্দির মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে কয়েক ডজন কারারক্ষীসহ অন্তত ৬৭ জন। গত সোমবার (২৫ এপ্রিল) শহরের ক্যাস্ত্রো ক্যাস্ত্রো কারাগারে এ দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ে। এরপর রাতেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চলে আসে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। খবর এএফপি। পেরুর জাতীয় কারা সংস্থা […]