টাঙ্গাইলে সকল উপজেলার নদীর পানি বৃদ্ধি,আগাম বন্যার সম্ভাবনা

এবিএম আতিকুর রহমান, সিনিয়র স্টাফ রিপাের্টার::
বৃষ্টি ও উজান থেকে আসা ঢলে টাঙ্গাইলের সব ক’টি নদীর পানি আশংকা জনক হারে বেড়েই চলেছে । ছোট বড় নদী নালা,খাল বিল ও নিম্ন ভূমি গুলো পানিতে কানায় কানায় ভরে উঠেছে। এর মধ্যে যমুনা, ঝিনাই ও ধলেশ্বরী নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সোমবার (২৯ জুন) সকালে ৯ টায় যমুনা নদীর পানি বিপসসীমার ২৮ সে.মিটার, ধলেশ্বরী নদীর পানি ৪৩ সে.মিটার এবং ঝিনাই নদীর পানি ২১ সেণ্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হতে দেখা গেছে। টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ড এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।
টাঙ্গাইলে সব নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সদর, ভূঞাপুর, কালিহাতী, গোপালপুর ও ঘাটাইল, নাগরপুর উপজেলার নদী তীরবর্তী নিম্ন ও চরাঞ্চল প্লাবিত হয়ে পড়েছে।
টাঙ্গাইল সদর উপজেলার কাকুয়া, হুগড়া, কাতুলী, মামুদনগর; ভূঞাপুর উপজেলার গাবসারা, অর্জুনা, গোবিন্দাসী, নিকরাইল; কালিহাতী উপজেলার দুর্গাপুর, গোহালিয়াবাড়ি, সল্লা, দশকিয়া; গোপালপুর উপজেলার হেমনগর, নগদাশিমলা, ঝাউয়াইল এবং নাগরপুর।এ ছাড়া ঘাটাইল উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ছোট ছোট নদী, খাল বিল ও নিম্নাঞ্চল গুলোতে ব্যাপক ভাবে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আগাম বন্যার আশংকায় ভয়ে রয়েছেন এ সব অঞ্চলের লোকজন।
উপজেলার সলিমাবাদ, ভাড়রা, মোকনা, পাকুটিয়া ইউনিয়নের অর্ধশত গ্রাম সম্পূর্ণ ও গ্রাম শতাধিক আংশিক প্লাবিত হয়ে পড়েছে।বন্যা কবলিত ও চরাঞ্চলের মানুষ তাদের বাড়ির ঘর অন্যত্র সরিয়ে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাচ্ছে। প্রায় ৩০ হাজারের অধিক পরিবার ইতি মধ্যেই পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।স্ব স্ব স্থানীয় একাধিক ইউপি চেয়ারম্যান জানান, নদীতে পানি বেড়ে নিম্ন ও চরাঞ্চলের মানুষ বন্যা কবলিত হয়ে পড়লেও সরকারি কোন ত্রাণ সামগ্রী বরাদ্দ পাওয়া যায়নি। নিজেরা ব্যক্তি উদ্যোগে অতি দরিদ্রদেরকে যতটা পারছেন সহযোগিতা করছেন।
টাঙ্গাইলের পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, ক্রমাগত বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে টাঙ্গাইলের যমুনা, পুংলী, ঝিনাই, বংশাই ও ধলেশ্বরী নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এর মধ্যে যমুনা, ধলেশ্বরী ও ঝিনাই নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি কমলে তীব্র ভাঙন দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।
নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ভাঙন কবলিত এলাকাগুলোর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ভাঙন রোধে পাউবো কাজ করছে বলেও তিনি জানান।সেই সাথে এ সব এলাকার ক্ষতি গ্রস্হ্য মানুষকে এখন থেকে পর্যাপ্ত ত্রান সহায়তা সহ সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার জন্য সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন।
(এবিএম আতিকুর রহমান, সিনিয়র স্টাফ রিপাের্টার ঘাটাইল টাইমস)/=

নিউজ ডেস্ক

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Next Post

ঘাটাইলে আরও ২ জন করোনা আক্রান্ত !

সোম জুন ২৯ , ২০২০
এবিএম আতিকুর রহমান, সিনিয়র স্টাফ রিপাের্টার:: টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে নতুন করে আরও দুইজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে উপজেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াল ২৪ জনে। বিষয়টি  আজ সোমবার (২৯ জুন) নিশ্চিত করেছেন ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডাঃ মো: মমিনুল হাসান হিমেল।মেডিকেল অফিসার ডাঃ মো: মমিনুল […]