ঘাটাইলে একটু বৃষ্টিতে পাহাড়ি গ্রামীন রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে

উত্তম কুমার,  সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার::

টাঙ্গাইলের  ঘাটাইল উপজেলার পুর্বাঞ্চল পাহাড়ি এলাকার লক্ষিন্দর ইউনিয়নের লক্ষিন্দর-বাঘাড়া বাজার- সাগরদীঘি পর্যন্ত ৬ দশমিক ১১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে রাস্তাটি একটু বৃষ্টিতে কর্দমাক্ত হয়ে যাতায়াতের অযোগ্য হয়ে পড়ে। এই রাস্তার মধ্যে সাগরদিঘী বাজার থেকে বেইলা গ্রাম পর্যন্ত দুই কিলোমিটার রাস্তা পাকা, বাকী ৪ দশকিম ১১ কিলোমিটার রাস্তা মনতলা-টু-বাঘাড়া বাজার-টু-লক্ষিন্দর পর্যন্ত কাঁচা। অসহনীয় জনদুর্ভোগ কমাতে গ্রামীন রাস্তাটি পাকা করা খুবই প্রয়োজন বলে দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

সজেমিনে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, বাঘাড়া বাজার টু সাগরদীঘি রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন বাঘাড়া, মনতলা ও কাইকারচালাসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের শতশত মানুষ যাতায়াত করে। শনিবার ও মঙ্গলবার সাগরদিঘী হাটের দিন বিধায় উক্ত দুই দিন প্রায় হাজার মানুষ এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে।
কাঁচা তিন কিলোমিটার রাস্তা সংলগ্ন মনতলা ও বাঘাড়া গ্রামে একটি করে দুইটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। বাঘাড়া ও মনতলাসহ আশেপাশের গ্রামের প্রায় সকল ছেলেমেয়েরা সাগরদিঘী উচ্চ বিদ্যালয়, সাগরদিঘী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও সাগরদিঘী কলেজে লেখাপড়া করে। এখানকার শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে হয়। ফলে সঠিক সময়ে তারা স্কুলে পৌছাতে পাড়ে না । বাঘাড়া এলাকার রঞ্জিত জানান,বর্তমানে এ রাস্তা দিয়ে ট্রাক, এম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস, টেম্পো প্রভৃতি যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।
তাইতো কোন অসুস্থ রোগীকে এ রাস্তা দিয়ে হাসপাতালে নেওয়া সম্ভব না হওয়ায় রোগী নিয়ে অনেক মানুষ বিপাকে পড়ে এমনকি প্রানহানির ঘটনাও ঘটে। বাঘাড়া, মনতলা ও কাইকারচালাসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষদের এই রাস্তা দিয়ে সাগরদিঘী বাজারে এসে তারপর জেলা সদরে আসতে হয়। একুট বৃষ্টিতে চলাচলে অযোগ্য হয়ে পড়ে।
এলাকাবাসী আরো জানায় প্রায় পঁচিশ বছর পূর্বে নির্মিত এই রাস্তাটি শুরু থেকেই কাঁচা হওয়ায় ও দীর্ঘদিন যাবৎ মেরামত না করার ফলে রাস্তাটির খানাখন্দে বৃষ্টির পানি জমে চলাচলের সম্পূর্ণ অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।
“পূর্বে প্রতিদিন বাঘাড়া বাজার থেকে ট্রাকে করে কাঁচা সবজি ঢাকায় নেয়া হতো। কিন্তু বর্তমানে যানবাহনের অভাবে উৎপাদিত কাঁচামাল বাজারে নিতে না পারায় ও পুর্বের মত ঢাকায় রপ্তানী করতে না পারায় কৃষকরা উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। বর্তমানে রাস্তাটির বিভিন্ন স্থানে এমনই খানাখন্দ ও গর্তের সৃষ্টি হয়েছে যে যানবাহন তো দূরের কথা পায়ে হেটে চলা দূস্কর হয়ে পড়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলে এই রাস্তায় কাদা ও পানি জমে যায়। ফলে এই রাস্তায় চলাচল আরও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়।
তাই মনতলা থেকে বাঘাড়া বাজার পর্যন্ত তিন কিলোমিটার রাস্তা পাকা করা খুবই জরুরী বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। রাস্তাটি পাকা হলে এ এলাকার কয়েক হাজার মানুষের বহু দিনের কষ্ট দূর হবে বলে মনে করছেন স্থানীয় জনগণ।

এ বিষয়ে লক্ষিন্দর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ একাব্বর হোসেন মুঠোফোনে জানায় আমরা রাস্তাটির পাকা করনের ব্যাপারে অনেকবার স্থানীয় সাংসদের কাছে দাবী জানিয়ে আসছি কিন্তু কোন কাজ হচ্ছে না ।

(উত্তম কুমার  সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার ঘাটাইল টাইমস)

নিউজ ডেস্ক

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Next Post

ঘাটাইলে  কলেজ প্রতিষ্ঠা উপলক্ষে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

বুধ জুন ২৪ , ২০২০
মো.হাবিবুর রহমান,ঘাটাইল সংবাদদাতা:  টাঙ্গাইলের  ঘাটাইল উপজেলায় চাপড়ি মনপুড়া আছিয়া হাসান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কলেজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এক মত বিনিময় সভা গত  মঙ্গলবার ( ২৩ জুন) আছিয়া হাসান মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে  অনুষ্ঠিত হয়েছে। চাপড়ি যুব সমাজের উদ্যোগে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।মত বিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগ্রামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আঃ রহিম মিয়া।সভায় […]